জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়-এ ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) ও বিবিএ ভর্তি শুরু, বিজ্ঞপ্তি ও আবেদনের লিংক দেখুন


শিক্ষা সংবাদ প্রকাশের সময় : জুলাই ৩১, ২০১৯, ৮:২৮ অপরাহ্ণ / ১০৩০
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়-এ ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) ও বিবিএ ভর্তি শুরু, বিজ্ঞপ্তি ও আবেদনের লিংক দেখুন

শিক্ষা সংবাদ : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি)’র ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে ৪(চার) বছর মেয়াদী স্নাতক (সম্মান) ও বিবিএ প্রথম বর্ষের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে। আগামী ০১-০৮-২০১৯ ইং থেকে ২০-০৮-২০১৯ ইং তারিখ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে ভর্তির আবেদন করা যাবে। গত বছর (২০১৮-১৯ সেশন) থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তির জন্য প্রার্থী বাছাইয়ের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। নতুন প্রবর্তিত এই লিখিত পদ্ধতিসহ ভর্তি সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য আমরা শিক্ষার্থীদের জন্য তুলে ধরছি।

অনলাইনে ভর্তির আবেদনের জন্য নিচে ক্লিক করুন

১. আবেদনের যোগ্যতা:-
আবেদন করার জন্য একজন প্রার্থীর এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় ন্যূনতম নিম্নোক্ত জিপিএ থাকতে হবে।

ইউনিট-১: জিপিএ ৮.০০ (কোনোটিতে ৩.০০ এর কম নয়)
ইউনিট-২: জিপিএ ৭.০০ (কোনোটিতে ৩.০০ এর কম নয়)
ইউনিট-৩: জিপিএ ৭.৫০ (কোনোটিতে ৩.০০ এর কম নয়)
সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা, ফিল্ম: জিপিএ ৭.০০ (কোনোটিতে ২.৫০ এর কম নয়)

ইউনিট-১ এ এইচএসসি (বিজ্ঞান ও ভোকেশনাল) এবং আলিম (বিজ্ঞান) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

ইউনিট-২ এ এইচএসসি (মানবিক, সঙ্গীত, গার্হস্থ্য অর্থনীতি) এবং আলিম (সাধারণ ও মুজাব্বিদ) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

ইউনিট-৩ এ এইচএসসি (বাণিজ্য শাখা, বিএম শাখা), ডিপ্লোমা ইন বিজনেস স্টাডিজ (DIBS) এবং ডিপ্লোমা ইন কমার্স উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্মে সকল শাখা থেকে এইচএসসি ও আলিম উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবে।

২. ভর্তির আবেদনের সময়সীমা:-

প্রাথমিক আবেদন: ১ আগস্ট দুপুর ১২.০০ টা থেকে ২০ আগস্ট রাত ১২.০০ পর্যন্ত।
চূড়ান্ত আবেদন: ২৩ আগস্ট আগস্ট দুপুর ১২.০০ টা থেকে ২ সেপ্টেম্বর রাত ১২.০০ টা পর্যন্ত।

৩. ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচী:-

ইউনিট-৩: ১৪ সেপ্টেম্বর
ইউনিট-২: ২০ সেপ্টেম্বর
ইউনিট-১: ২১ সেপ্টেম্বর
সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্মঃ (ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষা): ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু।

৪. ইউনিটসমূহ:-

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার ইউনিট বিভাজন একটু ব্যাতিক্রমধর্মী। ভর্তি পরীক্ষায় সাধারণ তিনটি ইউনিট থাকবে। যথা:

ইউনিট-১: বিজ্ঞান
ইউনিট-২: মানবিক
ইউনিট-৩: ব্যবসা

এছাড়া সকলেই সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা এবং ফিল্ম বিষয়ের জন্য আবেদন করতে পারবে। এই বিষয়গুলোর কোনো লিখিত পরীক্ষা হবে না। শুধু মাত্র ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমেই যোগ্যতা যাচাই করা হবে। আবেদন প্রক্রিয়া নিম্নে উল্লেখ করা হবে।

৫. জিপিএর মান:-

ইউনিট-১, ২ এবং ৩:

এএসসি (৪র্থ বিষয়সহ) x ২.৪০
এইচএসসি (৪র্থ বিষয়সহ) x ৩.২০

অর্থাৎ যদি কোনো শিক্ষার্থীর এসএসসি ও এইচএসসি উভয় পরীক্ষায় জিপিএ-৫ থাকে তার জন্য ভর্তি পরীক্ষার নম্বরের সাথে যুক্ত হবে।

৫x২.৪০=১২
৫x৩.২০=১৬
মোট: ১২+১৬=২৮

সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্ম:
এসএসসিx৪ (৫x৪=২০)
এইচএসসিx৬ (৫x৬=৩০)
মোটঃ ২০+৩০=৫০

৬. ভর্তি পরীক্ষার বিষয় ও মান বন্টন:-

ইউনিট-১: পদার্থ+রসায়ন+গণিত/জীব

প্রতিবিষয় থেকে ৬ টি করে ২৪ প্রশ্ন থাকবে। ১৮ টির উত্তর দিতে হবে। গণিত বা জীব বিজ্ঞান দুটি বিষয়ের যেকোনো একটির সবগুলো উত্তর করতে হবে এবং অপর বিষয়ের সবগুলো স্কিপ করতে হবে। প্রতি প্রশ্নের মান ৪ করে।

পদার্থ+রসায়ন+গণিত/জীব=২৪+২৪+২৪=৭২

ইউনিট-২: বাংলা+ইংরেজি+সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ, আন্তর্জাতিক ও বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক)
২৪+২৪+২৪=৭২

ইউনিট-৩: হিসাব বিজ্ঞান + ব্যবসায় সংগঠন ও ব্যবস্থাপনা, ব্যবসায় নীতি ও প্রয়োগ, গাণিতিক বুদ্ধিমত্তা + ভাষাজ্ঞান (ব্যবসায় ও অর্থনীতি বিষয়ক বাংলা ও ইংরেজি)
২৪+২৪+২৪=৭২

সঙ্গীত, চারুকলা, নাট্যকলা ও ফিল্ম: ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষা = ৫০ (এই ব্যবহারিক ও মৌখিক পরীক্ষার ধরণ সংশ্লিষ্ট বিভাগের ইচ্ছাধীন)

৭. আসন সংখ্যা:-

পদার্থ: ৮০
রসায়ন: ৮০
গণিত: ৮০
পরিসংখ্যান: ৮০
প্রানীবিদ্যা: ৮০
উদ্ভিদবিদ্যা: ৮০
ভূগোল ও পরিবেশ: ৮০
মনোবিজ্ঞান: ৮০
সিএসই: ৫০
মাইক্রোবায়োলজি: ৪০
ফার্মেসি: ৩৫
বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকিউলার বায়োলজিঃ৩০
জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং: ৩০
বাংলা: ৮০
ইংরেজি: ৮০
ইতিহাস: ৮০
ইসলামের ইতিহাস: ৮০
ইসলামিক স্টাডিজ: ৮০
দর্শন: ৮০
আইন : ৮০
ভূমি আইন: ৬০
আই ই আর: ৫০
ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ: ৪০
অর্থনীতি: ৮০
রাষ্ট্রবিজ্ঞান: ৮০
সমাজবিজ্ঞান: ৮০
সমাজকর্ম: ৮০
নৃ-বিজ্ঞান: ৮০
সাংবাদিকতা: ৮০
লোক প্রশাসন:৮০
একাউন্টিং: ১৬০
ম্যানেজমেন্ট: ১৬০
মার্কেটিং: ১০০
ফিন্যান্স: ১০০
সঙ্গীত: ৪০
চারুকলা: ৪০
নাট্যকলা: ৪০
ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন: ৩০

মোট আসন: ২৭৬৫

৮. আবেদন প্রক্রিয়া:-

প্রথমে প্রার্থীকে প্রাথমিক বাছাইয়ের জন্য আবেদন করতে হবে। প্রাথমিক আবেদন ফি ১০০ টাকা, যা bkash, SureCash বা Roket এর মাধ্যমে প্রধান করা যাবে। (এসএমএস বাবদ কিছু অতিরিক্ত ব্যালেন্স থাকতে হবে) প্রাথমিক ভাবে আবেদনকৃত প্রার্থীদের মধ্য থেকে জিপিএ অনুযায়ী প্রথম ২৫ হাজার জনের তালিকা প্রকাশ করা হবে। তাদেরকে এসএমএসও দেওয়া হবে। ২৫ হাজার তম প্রার্থীর সমমান জিপিএ ধারীরাও তালিকায় থাকবে। এই তালিকার প্রার্থীদেরকে আবেদন নিশ্চায়নের জন্য আরেকটি আবেদন করতে হবে। দ্বিতীয় এই আবেদনের ফি ৫০০ টাকা। (এসএমএস বাবদ কিছু অতিরিক্ত ব্যালেন্স থাকতে হবে)।

৯. সেকেন্ড টাইম নেই:-
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সেকেন্ড টাইম ভর্তি পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ নেই। শুধু মাত্র যারা ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে তারাই আবেদন করতে পারবে। তবে প্রার্থীর এসএসসি পাশের বছর ২০১৬/২০১৭ এর যেকোনো একটি হলেই চলবে। সে মোতাবেক যদি কোনো শিক্ষার্থী ২০১৬ সালে এসএসসি পাশ করে থাকে কিন্তু কোনো কারণে ২০১৮ সালে পাশ করতে না করে ২০১৯ সালে পাশ করে অথবা ২০১৮ সালের রেজাল্টে অসন্তুষ্ট হয়ে ২০১৯ সালে ইম্প্রুভমেন্ট পরীক্ষা দিয়ে পাশ করে তাহলেও সে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। ইম্প্রুভমেন্টের ক্ষেত্রে ঐ প্রার্থী ২০১৮ সালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলেও এবং ২০১৯ সালের এইচএসসি ইম্প্রুভমেন্ট পরীক্ষায় ফলাফল উন্নীত না হলেও ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে ভর্তি আবেদন ২০১৯ সালের রোল নম্বর উল্লেখ করতে হবে।

১০. বিভাগ পরিবর্তন:-

অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় বিভাগ পরিবর্তনের জন্য আলাদা কোনো ইউনিট নেই। তবে একজন শিক্ষার্থী একটি ইউনিটে পরীক্ষা দিয়েই বিশ্ববিদ্যালয়ের যতগুলো বিষয়ে পড়ার সে যোগ্য সবগুলোই চয়েস দিতে পারবে।

উদাহরণসরূপ কোনো শিক্ষার্থী বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এইচএসসি পাশ করলে সে শুধু ইউনিট-১ এ ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে ইউনিট-১ এ বিজ্ঞান বিভাগের বিষয়ের সাথে মানবিক ও ব্যবসা অনুষদের বিষয়েও নির্দিষ্ট সংখ্যক আসন রয়েছে। একজন শিক্ষার্থী ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে সে সেখান থেকে যে কোনোটি ফার্স্ট, সেকেন্ড, থার্ড এভাবে চয়েস দিতে পারবে।

১১.প্রস্তুতি:-

লিখিত পরীক্ষা হয় এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্নের ধারার সাথে মিলে এমন যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রস্তুতি নিলেই চলবে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্নের ধারা বুঝতে গত বছরের প্রশ্নগুলো দেখ। এছাড়া জবি ভর্তি পরীক্ষার জন্য বাজারে প্রজন্ম নামে একটি সহায়িকা আছে।

মূল ভর্তি বিজ্ঞপ্তি দেখুন নিচে:-

সূত্র: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ওয়েবসাইট – jnu.ac.bd