রংপুর, বরিশাল, সিলেট ও পাবনা চার মেরিন একাডেমি নিজস্ব ক্যাম্পাসে ২০২১ সালের জানুয়ারির মাঝামাঝি থেকে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু

0
60
বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য যোগাযোগ করুন : ০১৭১৭১২৪৬৪৬

সমুদ্র খাতে দক্ষ কর্মী তৈরির লক্ষ্যে রংপুর, বরিশাল, সিলেট ও পাবনায় নতুন প্রতিষ্ঠিত চারটি মেরিন একাডেমি নিজস্ব ক্যাম্পাসে ২০২১ সালের জানুয়ারির মাঝামাঝি থেকে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু করবে বলে আশা করা হচ্ছে।
চারটি মেরিন একাডেমি প্রতিষ্ঠা প্রকল্পের পরিচালক রফিক আহমেদ সিদ্দিক বাসস-এর সাথে আলাপকালে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই মেরিন একাডেমি চালু করবেন বলে আশা করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের সমুদ্র ভ্রমণের বিষয়ে দীর্ঘ ঐতিহ্য এবং নাবিকদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য প্রাথমিক জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা রয়েছে। বিশ্বব্যাপী শিপিং শিল্প এবং এর সমুদ্র পরিবহনের চাহিদার প্রতি অধিকতর মনোযোগী হয়ে দেশে চারটি মেরিন একাডেমি অতি সম্প্রতি নির্মিত হয়েছে। এখন এগুলোতে সামুদ্রিক প্রশিক্ষণে ব্যবহারের জন্য সব কিছু প্রস্তুত রয়েছে।’
তিনি বলেন, চট্টগ্রামের বাংলাদেশ মেরিন একাডেমিতে এই নতুন একাডেমিগুলোর প্রতিটির ৫০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে প্রথম ব্যাচের (২০২০-২১ সেশন) শিক্ষা কার্যক্রম চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে শুরু করেছে। নতুন মেরিন একাডেমিতে প্রতি বছর আরও ২ শতাধিক শিক্ষার্থী এই খাতের দক্ষ হিসেবে পরিণত হবে বলে প্রকল্প পরিচালক উল্লেখ করেন।
রফিক আহমেদ সিদ্দিক বলেন, বাংলাদেশ সমুদ্র কর্মকান্ডে ব্যাপক আগ্রহী একটি দেশ এবং সমুদ্র পরিবহন বৈশ্বিক নৌ-পরিবহন শিল্পের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র।
দেশে প্রথম সরকারি মেরিটাইম ইনস্টিটিউট ১৯৫২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় এবং ক্যাডেট ও অফিসার তৈরির জন্য প্রথম মেরিন একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬২ সালে।
প্রকল্প পরিচালক বলেন, বৈশ্বিক প্রয়োজনীয়তা কথা মাথায় রেখে সরকার ৫২১.৪৬ কোটি টাকা ব্যয়ে আরও চারটি নতুন মেরিন একাডেমি প্রতিষ্ঠা করে সমুদ্র খাতকে সম্প্রসারণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
তিনি আরও বলেন,এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য হচ্ছে দেশজুড়ে সামুদ্রিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ প্রসারিত করা এবং শিপিং শিল্পের চাহিদা অনুযায়ী দক্ষ মেরিন অফিসার বা ইঞ্জিনিয়ার তৈরি করা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here